A sudden remarkable incident of my life

Crossing road holding his girl friend.

২৯ আগস্ট, মধ্যদুপুর।
নীলক্ষেতে রাস্তা পার হচ্ছিলাম।
রিকসাগুলা সব জঞ্জাল এর মতন হয়ে গা ঘেসে ঘেসে সামনে আগাচ্ছিল খুবই ধীরগতিতে।
মেঘের গর্জনে জানান দিচ্ছিল সব কিছু কাপিয়ে ঝড় তোলা বৃষ্টির।
প্রায় সাথে সাথেই বৃষ্টির ফোটা শহরটাকে ভিজিয়ে দেয়ার জন্য আকাশ থেকে মাটিতে নেমে আসছিল বিশাল গতিতে।
সব কিছুতেই তাড়াহুড়ো লেগে গেল।
আমিও বাড়িয়ে দিলাম রাস্তা পার হবার গতি।
রিকসাগুলো কোনমতে পার করে এগিয়ে যাচ্ছিলাম।
যতটা সম্ভব কম ভিজে রাস্তা পার হওয়াটাই আসল উদ্দেশ্য।
একটা রিকসার হুড ধরে পার হতে গিয়েই লাগল বিপত্তিটা।
রিকসার হূড সাধারনত শক্ত হয়ে থাকে।
কিন্তু সব তালগোল পাকিয়ে অনুভব করলাম খুবই নরম একটা ছোয়ার মতন কিছু একটা।
তাকিয়ে দেখি রিকসার মধ্যে কলেজপড়ুয়া এক অসম্ভব সুন্দরী কিশোরী রিকসার হূড ধরে বসে আছে ।
দেখে পুরোপুরি বিস্ময়ে হতবুদ্ধ হয়ে বললাম খুবই স্যরি আপু,
আমি ইচ্ছে করে তোমার হাতে হাত রাখিনি।
না দেখেই এটা হয়ে গেছে।
জবাবে সে হাস্যজ্জ্বল মুখে বললো, 
কোন সমস্যা নেই ভাইয়া, আমি দেখছিলাম আপনি খুব দ্রুত না দেখেই রাস্তা পার হচ্ছিলেন।
এটা বলেই সেই হাসির পুনরাবৃত্তি করে রিকসা নিয়ে সামনের দিকে যেতে যেতে একসময় অদৃশ্য হয়ে গেলো।
Love At first sight মনে হয় হয়েই গেল।
না না আমার নাহ।
ওই কিশোরীর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + 9 =